Friday, 31 December 2010

নায়ক নায়িকা

নায়ক নায়িকা 
ময়ুর পঙ্খী মেঘের পাট
ভাঙি নি এখনো  রয়েছে কোন 
অদৃশ্য সিন্দুকে 
জানি না কোথায় হইতে ঝরে আসে 
লেবু ফুলের ঝির ঝির সুগন্ধ 
ভরে যায় রিক্ত হৃদয় বারে বারে 
তুমি কি দাড়িয়ে আছ এখনো 
অজানা কোন অরণ্য বিথিকায় 
মৃগ নয়নে লয়ে স্বপ্ন মধুর 
অর্ধ নিশীথে শুনেছি তোমায় 
সারঙ্গের মর্ম স্পর্শী ডাকে 
ঝিলের উচ্ছ্স্বাসে জেগে উঠে যেন 
কুমুদীর সুপ্ত অভিলাষা
চেয়ে দেখি জানালার পারে 
অর্ধ নীল চন্দ্র ভেসে যায় 
তোমার সোনালী উত্তরিযর মাঝে 
ছুঁয়ে যায় দেহ ও প্রাণ 
উন্মাদিত তোমার কবিতার যবনিকা 
ঢেলে যায় আঁচলে 
অগনিত আকাশ গঙ্গা
আমি চেয়ে রই নিষ্পলক 
সেই শুভ্র অশ্বারোহী উড়ে যায় 
সুদূর আকাশ পথে 
সেই সোনালী উত্তরীয় বুকে জড়িয়ে আমি 
পাট করে যাই ইন্দ্র ধনুর গড়ানো রঙ্গ 
বারে বারে ---
 ---------------------------------------
অন্য জানা পথে হাঁটা যায় না 
ওই এক ঘেয়েমি মানুষের মধ্যে 
হা করে যেন গিলে যাবে, অসভ্য 
যত সব পরিচিত মুখ 
আর ভালো লাগে না চার দিগে যেন 
অদৃশ্য দহন দিবা নিশি 
তোমার সেই কথায় আমি হাসি নি 
কিন্তু আমি চেয়ে ছিলাম স্বপ্ন দেখতে 
প্রশ্নের মাঝখানে উঁকি দিয়ে ছিল 
অতৃপ্ত তোমার হৃদয়ের মরুভূমি 
শুন্য  স্থানে রং ভরতে পারি নি 
নিয়নের আলো তে ওই বড় বড় চোখে 
ছিল বাঁচার অদম্য বাধ্যতা কিংবা ইচ্ছা 
আমি চেয়ে ছিলাম দুই হাত সহজে ধরে বলি 
আমি আছি ত ! কিন্তু পারি নি 
আমার নিরবতা তুমি বুঝতে পারো নি 
হয়ত বুঝতে ই চাও নি সেই শ্রাবণ সন্ধ্যায় 
উলহানা দিয়ে তীব্র ঝড়ের মত তুমি গেছ চলে 
ফিরে আর যে দেখো নি 
একাকী আমি এখনো পথ চেয়ে থাকি 
কত শ্রাবণ বয়ে গেছে এই লেম্প পোস্টের নিচে 
নিজের ছায়া চিনতে চায় না আমায় 
হয় তো গেছ তুমি ও এই ভিড়ের প্রবাহে 
আর চিনেও চিনতে চাও নি 
ঠিকই ত বেদনা, চিরদিনের যুক্ত সন্ধি নয় 
বিগ্রহ ঘটে গেছে অনেক আগে 
ভালো টা আমার হৃদয়ে, বাসা হয় তো 
তুমি অনন্য কোথায় বেঁধে নিয়েছ //
---- শান্তনু সান্যাল