Friday, 14 January 2011

উল্কা পাত

উল্কা পাত 
মায়ামৃগ সম তুমি চেয়ে আছ 
বাহিরের জনসমুদ্র, অচেনা মুখ 
কিংবা ছাউ নাচের নানান মুখোশ 
রঙ্গীন আলোর আড়ালে আমিও রয়েছি 
কোনো এক নিস্তেজ আকাশদীপে, সে হয় 
ত  তুমি টের পাও নি,বসে আছি মুখোমুখি 
এই অজানা রেস্টরেন্টে, মুখ ঘুরিয়ে 
তুমি কী যে খুঁজে চলেছ যদি বলতে 
ওই দীর্ঘ ভাঙা গভীর নিঃশ্বাসে
ভালবাসা যেন হাঁপিয়ে উঠেছে 
সুদূর নীল পাহাড়ের গায়ে সূর্য্য গেছে ডুবে
এই নিষ্তব্ধ ক্ষণে দিয়ে গেছে কিছু 
প্রশ্ন চিহ্নেরআলেয়া ও জোনাকির আলো
অবহেলিত মোমবাতি জ্বলে উঠে 
জানি না কোন হারানো করূণ সুরে 
গোলাপ গুচ্ছটি হিমল হাতে ছুঁয়ে 
সরিয়ে রেখেছ এই ভাবে মনে হয় 
মধ্য রাতে নিশি ডাকের শিহরণ যাই নি 
এখনো, না বলে ও বলে গেছ অনেক কিছু 
হাসির প্রতি উত্তরে দেখি উল্কা পাত 
তুমি হারিয়ে গেছ অজ্ঞাত কোন অন্তরীক্ষে 
হয় ত তোমার মধ্যমা অঙ্গুলির মাঝখানে 
গেঁথে গেছে হিরক বলয় 
আস্তে করে স্পর্শ করি তোমার কোমল হাত
মোমবাতির আলো তে দেখি তোমার সরু আঙ্গুলের 
ডগায় ডগায় স্বপ্নগুলো ঝিলমিল ঝিলমিল ---- 
আমি অবাক চেয়ে রই তোমার এই অভিনব 
রূপখানি, শুধুই চেয়ে থাকি !
---- শান্তনু সান্যাল