Sunday, 3 April 2011

ঘুম আসে না কেন সারা রাত

জরায়ুর অণু, পলাশ গাছের কাণ্ড
অচেতন লাক্ষ, লাস্যময় অতৃপ্ত ভাবনা
শুকের খোল ঝুলে রয়েছে ত্রিপল্লবের নীচে !
রেশমের কীট, হামা গুড়ি করে আবেগ
নাল বিছিন্ন কমল, দেবতার পদতলে -
ঝলসে যায় বৃন্ত, কেন্দ্রকে উঠে আসে স্ফীতি
ঋতুচক্র চঞ্চলমতি, ঘুরে যায় ঘড়ির কাঁটা
মস্তিষ্ক, বক্ষ, নাভি, কটিবন্ধের সীমানা
হইতে জীবনের কামনা বহমান, চিরন্তন
অবিরাম ধেয়ে যায় স্রোতস্বিনী, নিসর্গ
অবাধ্য, করে যায় প্রতিপলে নবীন সৃষ্টি
প্রেমাঙ্কুর পবিত্র কি অপবিত্র, অপরিভাষিত!
উর্ধস্থিত জলধারা নিম্নগামী শুধুই বহিতে জানে
বিপরীত স্রোতের স্বপ্ন, কুহকে কুয়াশা
ভরে যায় অন্ধকার যদ্যপি তারক খচিত
আকাশ দেদীপ্যমান, জ্যোতির্ময় আকাশগঙ্গা
জীবনের অন্ত প্রহর, দুঃখ দায়ক মায়া
সন্ধান রত ইচ্ছা, ধেয়ে যায়, সুদূরে নীল ছায়া
গড়ে মন কাল্পনিক জগত, আজন্ম বেঁচে থাকার
অদম্য, অস্বাভবিক আকাঙ্ক্ষা, খুলতে চায় না
দ্বার খানি, কড়া নড়ার শব্দে রহস্যময় আগন্তুক
রজনীগন্ধা জেগে রয় সম্পূর্ণ নিশা ----

---- শান্তনু সান্যাল