Tuesday, 18 January 2011

নির্ঝর দীপ্তি

না, জানতে চেয় না প্রণয়ের অথৈ গভীরতা

অজস্র অনল শিখা জ্বলে উঠে নিমিষে
সহস্ত্র সাওনের ধারা বহে গেছে জীবনে
তবু নিভি নি তোমার অনন্ত ভালবাসা,
হৃদয়ের সেই অতৃপ্ত গহ্বরে
অর্ধ প্রস্ফুটিত কত শতদল ভেসে যায়
লবনীয় অথাহ সলিলের উপরে,
কত স্বপ্ন গেছে বদলিয়ে
স্ফটিক শৈল রূপে, ঝরে যায়
বিন্দু বিন্দু অনুরাগ অশ্রু, ঝুলন্ত
পাষাণী জটাকৃতির অঙ্গ হইতে,
এই পাতাল পথে নিঃশ্বাস যায় হারিয়ে
রহস্যময় গুহা পেরিয়ে ভেসে উঠে
মধ্য মহাসাগরের বুকে,
মনের ব্যথিত উর্মিমালা ধেয়ে যায়
তোমার প্রেমের অন্তহীন সাগর তীরে,
যেন তুমি আজ ও দাড়িয়ে আছ
অবনত মেঘের অণু পরমাণু প্রবাহে
আমার তৃষিত বক্ষে বিলীনতার অভিমুখে,
সেই মহা সিন্ধুর তটে দেখি তুমি
হয় উঠেছে প্রকাশ স্থম্ভের নীল জ্যোতি
রিক্ত পাত্র নিয়ে, আমি হাত বাড়িয়ে চেয়ে থাকি
তোমার অমৃতময় ঝরিত নির্ঝর দীপ্তি
রোমাঞ্চ মিশ্রিত সেই তোমার হাসি
কোনো দিনেই ডুবতে দেয় না জীবনের মহাদ্বীপ
আমি ভেসে যাই দিশাহীন  তোমার ওই
ভুবন মোহিনী রূপের অদৃশ্য বিরাট তরঙ্গে //
--- শান্তনু সান্যাল

স্বর্ণিম বর্ণমালা

স্বর্ণিম বর্ণমালা
অভিষিক্ত পরাগে, ঘনিয়ে উঠে 
ত্বম অনিন্দ্য হৃদয় ঢেলে রয় -
সুবাস, জীবনের মোহভঙ্গ বৃন্তে,
নব কল্পনার, কিশলয়ের শীর্ষে 
যেন শিশির বিন্দু রয়েছে অস্থির,
 পৃথিবীর ক্রন্দন থেমে যায় কিছু 
ক্ষণ, ভূগর্ভ দহনের মাঝে,
ভূমিকম্প দেখে রয় অদৃশ্য সপন,
এই সৃষ্টির মধুরিম শয়নে 
আমি পুঁতেছি দুর্লভ প্রেমাঙ্কুর,
ঢেলে গেছি আত্ম সুধা বারে বারে 
সেই অঙ্কুরিত ভাবনার প্রবাহে 
লিখে গেছি ইন্দ্রধনুর গায়ে কিছু 
ভালবাসার গান, এঁকেছি মম 
কল্পনার মনোরম ভিন্ন পৃথিবী, 
এই সুন্দর কৃতির আড়ালে ও 
লুকিয়ে রয়েছে বহু মরুভূমি 
পরিত্যক্ত বন্ধ্যা বিস্তীর্ণ আকাশ, 
যেন হাসতে গিয়ে ভেঙে গেছে 
অশ্রু কটিবন্ধ, মণিমুক্ত হার 
জীবনের এই আলো আঁধারের
নাগরদোলায়, দুলেছি আপন মনে 
বহুবার, ত্বম প্রেমের প্রতিচ্ছায়া 
লাগে ভালো, ভুলে রই কিছু পল 
দুঃখ বেদন, তারা বলে আমি না 
কী অর্ধাংশ মনু গ্রহণ,
ত্বম বর্চস্বমাধুরী, ভরে যায় জীবনে 
নানান রঙের কাহিনী, গল্প, উপন্যাস 
আমি তোমার প্রনয় কাব্যের পৃষ্ঠে 
হয় উঠি স্বর্ণিম বর্ণমালা // 
-- শান্তনু সান্যাল