Saturday, 10 March 2012


সে দেখি নি সকাল 

অস্থিরতার  সঙ্গে তার তীব্র পদক্ষেপে অনেক 
কাছে আসা, বিব্রত করি নি আমায়, 
শুধু মনে পড়ে ছিল সে দিন ওই 
ঘুড়ির  সুতার  গায়ে জড়ানো
কাচের গুঁড়া, ও 
কপোতের  
রক্তঝরিত  ডানা, অসহায় দুটি চোখ,
আশ্রয়  খুঁজে চলেছে যেন  পালঙ্কের
নিচে, এক রাতের জন্য যদি
নিঃশ্বাসটি ধরে রাখে 
ছোট্ট জীবন ক 
এক মুহূর্ত, 
আমি ও বাধা  দিতে চাই নি তার এই ভাবে 
উটকো  অনুপ্রবেশ  কে, কোথায় যেন 
মায়া  ছুঁয়ে ছিল গভীর  মনে, 
তাই তাকে ধরে বাহির 
করি নি, আলোটা
নিভিয়ে দিয়ে 
ছিলাম সহজ মনে, অবশ্যই  ইচ্ছে ছিল তার 
ক্ষত স্থানে আলতো  স্পর্শ  করে বুকে 
জড়িয়ে বলি সব  ঠিক হয় যাবে, 
জীবনের  এখানেই ত 
ইতি নয়,
আবার  নীলাকাশে  তুমি  উড়ে যাবে বহু দূর 
স্বপ্নাঞ্চলে, হয় ত পেয়ে যাবে হারানো 
ঝাঁক, ঘুমের  ঘোরে ভুলে গেছি 
জানালা  টানতে, সকালের 
কচি  আলোয় খুঁজে 
ছিলাম তাকে, 
সারাটা  ঘরে, পালঙ্কের  নিছে, আলনার  পিছে,
ঠাকুর  ঘরে, সব জায়গায়, উদাস মনে 
যখন এসে দাঁড়িয়ে আছি অলিন্দ 
ধরে, হটাত  দেখি মেঝের 
উপরে  ছড়িয়ে
ছিটকে 
আছে ক এক ফোঁটা রক্ত, কিছু ছেঁড়া পালক.

- শান্তনু সান্যাল
pigeon by Dominique Antony.jpg


No comments:

Post a Comment